দুই সিটির ভোট পেছাতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন পেছানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চিঠি দিয়েছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। আসন্ন সিটি নির্বাচনের দিন (৩০ জানুয়ারি) সরস্বতী পূজা থাকায় এ দাবি জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীকে একটি চিঠিতে এ আবেদন জানায়। এরপর আরেকটি চিঠিতে একই দাবি নির্বাচন কমিশনেও (ইসি) জানানো হয়। এর আগে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ এবং হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদও একই দাবি জানিয়েছে ইসির কাছে।

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি গৌরাঙ্গ দে ও ঢাকা মহানগরের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সহদেব বৈদ্য স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘গণতন্ত্রের মানসকন্যা, অসাম্প্রদায়িক চেতনার মূর্ত প্রতীক, আমাদের আশা ভরসার আশ্রয়স্থল, বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় নেতা, টানা তিন বার নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী আপনাকে শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

‘আপনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বাংলাদেশে প্রতিটি নির্বাচন সুষ্ঠু, সুন্দর ও সুশৃঙ্খল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করে দেশে ও বিদেশে প্রশংসিত হয়েছেন। যা থেকে আমরা বাঙালি হিসেবে গর্ববোধ করি।’

চিঠিতে বলা হয়েছে, নিয়ম অনুযায়ী আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট। ইতোমধ্যে এ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। কিন্তু ওইদিন সনাতনী সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। আমরা জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবাই সমবেত হই এ উৎসবে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, ক্লাব, পাড়া, মহল্লায় বিভিন্ন স্থানে পূজা অনুষ্ঠত হওয়ার কারণে ভোটে অনেকেই অংশগ্রহণ করতে পারবে না। তাই ওইদিনের পরিবর্তে অন্যদিন নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সনাতনী সম্প্রদায়ের বৃহত্তর একটি অংশকে ভোট প্রয়োগ করার সুযোগ দেওয়ার আবেদন জানাচ্ছি।

এদিকে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার কাছে লেখা চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, আপনি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বাংলাদেশে প্রতিটি নির্বাচন সুষ্ঠু, সুন্দর ও সুশৃঙ্খল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করে দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছেন। যা থেকে আমরা বাঙালি হিসেবে গর্ববোধ করি।

নিয়ম অনুযায়ী আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট। ইতোমধ্যে এ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। কিন্তু ওইদিন সনাতনী সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। আমরা জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবাই সমবেত হই এ উৎসবে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, ক্লাব, পাড়া, মহল্লায় বিভিন্ন স্থানে পূজা অনুষ্ঠত হওয়ার কারণে ভোটে অনেকেই অংশগ্রহণ করতে পারবে না। তাই ওইদিনের পরিবর্তে অন্যদিন নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সনাতনী সম্প্রদায়ের বৃহত্তর একটি অংশকে ভোট প্রয়োগ করার সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*