ভেঙে পড়ল রেলভবন; নিহত ৩

গতকাল শনিবার রাত ৮টার পর থেকে কয়েক দফায় ভেঙে পড়েছে স্টেশনের বারান্দা ও তার স্তম্ভগুলি।দুর্ঘটনার সময় স্টেশনে যাত্রীদের ভীড় ছিল। তখনই ভেঙে পড়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রাচীন এই রেল ভবনটি। মুহূর্তে ছুটাছুটি শুরু হয়ে যায় স্টেশন চত্বরে।  এই ঘটনায় দু’জন আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতাল থেকে খবর পাওয়া গেছে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বর্ধমানের এ ঘটনা ঘটেছে।

চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, এই দিন রাত ২টো ৩৫ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয় বলে । তবে, মৃত ওই ব্যক্তির এখনও পর্যন্ত কোনও পরিচয় জানা যায় নি। আহত হয়েছেন হপনা টুডু নামে এক ব্যক্তি। তিনি ঝাড়খণ্ডের পাকুড়ের  বাসিন্দা। তাঁর পায়ে আঘাত লেগেছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে।

দুর্ঘটনার পর হতাহতের সংখ্যা নিয়ে গুজব শুরু হয়ে যায়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রাত দশটা নাগাদ স্টেশন চত্বরে আসেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী। তিনি বলেন, রেলের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের ঘটনার কথা জানিয়েছি। ডিআরএম ও রেলের সিভিল ইঞ্জিনিয়ার আসছেন। আমরা রেলের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করছি। সব সাহায্য করা হবে।

সম্প্রতি ভবনটির ওই অংশের রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শুরু হয়েছে। রেলের পক্ষ থেকে ওই কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয় এক ঠিকাদার সংস্থাকে। এদিনও কাজ করেছে ঠিকাদারের লোকজন। তবে প্রাচীন এই ভবনের রক্ষণাবেক্ষণের মতো অভিজ্ঞতা ওই ঠিকাদার সংস্থার রয়েছে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দুর্ঘটনার পরই ফাঁকা করে দেওয়া হয় স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্ম। অন্যান্য প্ল্যাটফর্মে চালানো হয় দূরপাল্লা ও লোকাল ট্রেন। যাত্রীদের পেছনের সাবওয়ে দিয়ে স্টেশনে ঢোকানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*