নতুন বাজেটে ১৫০০ কোটি টাকা নগদ সহায়তার প্রস্তাব করা হয়ছে তৈরি পোশাকে

বিডিনিউজ প্রতিদিনঃ তৈরী পোশাকে প্রণোদনা বাড়ছে – সংগৃহীত তৈরী পোশাক খাতে নগদ প্রণোদনা ১ ভাগ বাড়ানো হচ্ছে। বর্তমানে এ সহায়তা ৪ ভাগে রয়েছে। ১ জুলাই থেকে তা বাড়িয়ে ৫ ভাগে উন্নীত করা হবে। আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সহায়তা বাড়ানোর এ প্রস্তাব করা হবে বলে জানা গেছে।

বর্তমানে বিভিন্ন রফতানিমুখী পণ্যে নগদ সহায়তা দেয়ার পরিমাণ বার্ষিক সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা। তৈরী পোশাক খাতে নগদ সহায়তা ১ ভাগ বাড়ানোর কারণে আগামী অর্থবছরে এ খাতে অতিরিক্ত দেড় হাজার কোটি টাকা লাগবে বলে অর্থমন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। সংসদের অনুমোদন সাপেক্ষে নগদ সহায়তা বাড়ানোর এ সিদ্ধান্ত আগামী ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে রফতানিমুখী তৈরী পোশাক খাত ৪ ভাগ হারে নগদ প্রণোদনা পেয়ে আসছে। ১ শতাংশ বাড়ানোর ফলে এই খাতে নগদ সহায়তার পরিমাণ বেড়ে গিয়ে দাঁড়াবে ৫ শতাংশে। বর্তমানে ৩৫টি রফতানিমুখী পণ্য নগদ সহায়তা পেয়ে আসছে। পুরো নগদ সহায়তার ৭০-৮০ ভাগ তৈরী পোশাক খাতে ব্যয় হয়।  জানা গেছে, তৈরী পোশাক রফতানিকারক সমিতি বিজেএমইএ এ খাতে নগদ সহায়তার পরিমাণ বিদ্যমান ৪ ভাগ থেকে বাড়িয়ে ৮ ভাগে উন্নীত করার দাবি জানিয়েছিল। সংগঠনটির সভাপতি রুবানা হক জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশের তৈরী পোশাক খাত সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে। তাই এ খাতে নগদ প্রণোদনা আরো ৫ ভাগ বাড়ানো প্রয়োজন।

কিন্তু অর্থ অর্থমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দেশের তৈরী পোশাক খাত নগদ রফতানি সহায়তা ছাড়াও শুল্কসহ অনেক ধরনের সুযোগ-সুবিধা পেয়ে আসছে। তাই দেশের প্রধান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী এখাতে এ মুহূর্তে নগদ সহায়তা ১ ভাগের বেশি বাড়ানো সরকারের পক্ষে সম্ভব হবে না। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীরও সম্মতি পাওয়া যায়। ফলে আগামী অর্থবছরে তৈরী পোশাক খাতে নগদ সহায়তা ১ ভাগ বাড়ানোর বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছে। সূত্রঃ নয়াদিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*