কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্সের বর্ণিল যাত্রা

বিডিনিউজপ্রতিদিনঃ গত রবিবার ৩০শে এপ্রিল ২০১৯ দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলের অভিজাত হেমিলটন হোটেলের কসমস হল রুমে কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্সের যাত্রা শুরু হয়। দক্ষিণ কোরিয়াস্হ বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম বর্ণিল এই ব্যবসায়ী সংগঠনটির শুভ উদ্ভোধন করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন নব নিযুক্ত প্রেসিডন্ট ডঃ সাংমিন উ। উল্লেখ্য, প্রেসিডন্ট সাংমিন উ এর আগে আমেরিকার ভার্জিনা স্টেটের কোরিয়া সরকারের কমিশনার ও অস্ট্রেলিয়া কুইন্সল্যান্ডের কমিশনার হিসাবে দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দ্বায়িত্ব পালন করেছেন।

স্বাগত বক্তব্যে তিনি উপস্হিত সবাইকে স্বাগতম ও ধন্যবাদ জানান। কেবিসিসি’র গঠন সম্পর্কে তিনি বলেন, ৩০শে জানুয়ারি ২০১৯ হেমিলটন হোটেলে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্স গঠিত হয়। উল্লেখ্য, ১৯ই মার্চ কোরিয়া সরকার থেকে সংগঠনটি নিবন্ধন লাভ করে। আগামীতে দক্ষিণ কোরিয়া বাংলাদেশে কোরিয়ান বিনিয়োগকে আকর্ষিত করার জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা তিনি বলেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য , বিনিয়গ বিষয়ক সেমিনার , রোড শো, এক্সিভিশন, ও প্রতিনীধি নিয়ে বাংলাদেশে গমন, ও কোরিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশী ছাত্রছাত্রীরদের জন্য স্কলারশিপ ফান্ড তৈরি করা। কেবিসির গঠন প্রক্রিয়া আজকের এই ঐতিহাসিক দিনে অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্য কেবিসিসির প্রধান উপদেষ্টা ওগিয়ং ইন ও সাধারন সম্পাদককে বিশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

প্রধান অতিথি রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স গঠনের মধ্য দিয়ে কোরিয়ায় আজ নতুন ইতিহাস রচিত হলো। এই জন্য তিনি কেবিসিসি’র প্রেসিডেন্ট ডঃ সাংমিন উ সহ সকল পরিচালক, উপদেষ্টা ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান, তিনি আরো ধন্যবাদ জানান কেবিসিসি’র নব নিযুক্ত সাধারন সম্পাদক আবুবকর সিদ্দিক রানা কে কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অফ কমার্সকে বাস্তবে রুপ দেওয়ার জন্য।তিনি বলেন, বর্তমানে কোরিয়া বাংলাদেশের মধ্য চমৎকার সম্পর্ক বিদ্যমান । বাংলাদেশ সরকার সবসময়ই কোরিয়ান বিনিয়োগকারিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে থাকে। কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের মাধ্যমে আরো বেশী কেরিয়ান বিনিয়োগ বাংলাদেশে যাবে বল তিনি আশা করেন।

কোরিয়ান ও বাংলাদেশী অনেক ইন্ডাস্ট্রিয়ান, ব্যাংকার, ব্যবসায়ি, আইন বিশেষজ্ঞ , শিক্ষাবিদ, মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব ও গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের উপস্হিতিতে কোরিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখার জন্য রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলামকে ক্রেস্ট তুলে দেন কেবিসিসির প্রেসিডন্ট ড: সাংমিন উ। রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম, প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট, জেনারেল সেক্রেটারি সহ সকল পরিচালক, উপদেষ্টা ও সদস্যদের হাতে কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের আগামী তিন বছরের জন্য নিয়োগপত্র তুলে দেন।

বিনিয়োগ সম্পর্কিত বাংলাদেশের উপর একটি চমৎকার প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ দূতাবাসের বানিজ্যবিষয়ক কাউন্সেলর মোহাম্মদ মাসুদ রানা চৌধুরী।রুপকল্প ২০২১ ও রুপকল্প ২০৪১ এর কথা বলে তিনি বলেন ২০৪১ এ বাংলাদেশ দক্ষিণ কোরিয়াকে ছাড়িয়ে যাবে যদি বর্তমান সরকারের রুপকল্প গুলো বাস্তবায়িত হয়।তিনি কোরিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স কেবিসিসির সকলকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

প্রেসিডেন্ট ড: সাংমিন উ’র সভাপতিত্বে, অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আবুবকর সিদ্দিক রানা। চেম্বারের বর্ণিল অনুষ্ঠান ডিনার পরিবেশনের মধ্য সমাপ্তি হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*